আই লাভ ইউ (জীবন জাগার গল্প ১৪)

লেখক মুহাম্মাদ আতীক উল্লাহ

প্রকাশক মাকতাবাতুল আযহার

পৃষ্ঠা সংখ্যা ১২৮

মুদ্রিত মুল্য ৳ ২০০.০০

ছাড়ে মুল্য ৳ ১২০.০০(-40% Off)

রেটিং

ক্যাটাগরি ইসলামি গল্প

সফল সংসারের মূল চাবিকাঠি কে?স্বামী না স্ত্রী? উত্তরটা এককথায় দেওয়া কঠিনই বটে! উত্তর খোঁজার আগে সংসারে মহীয়সীগণের ভূমিকা নিয়ে একটু চিন্তা ভাবনা করা যাক! 
সংসারে পুরুষের চেয়ে একজন নারী অনেক বেশি বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখে।
নারীকে যাই দেয়া হোক, সে তার বিনিময়ে দ্বিগুণ বা কয়েকগুণ বা আরও বেশি ফিরিয়ে দেয়।
নারীকে ছোট্ট একটি গৃহকোণ দিলে সে একটি উষ্ণ সংসার উপহার দেয়।
নারী কে একটি ছোট্ট মুচকি হাসি দিলে বিনিময়ে পুরো হৃদয় দিয়ে দেয়। সামান্য কবুল বললে শেকড়সুদ্ধ উপড়ে দেয়। এজন্য তার দিকে একটি নুড়ি ও ছুড়ে ফেলার আগে খেয়াল রাখতে হবে বিনিময়ে কী আসতে পারে?

*আদর্শ সতীন*
গল্পটিতে দেখা যায় এক ব্যবসায়ী তার পরিবার থাকা সত্ত্বেও কোন এক মহিলা ক্রেতাকে দেখে বিমুগ্ধ হয়ে পড়ে।
মহিলার নিয়ত থাকায় আবার ব্যবসায়ী ও একমত পোষণ করায় তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।
প্রথম স্ত্রী শুরুতে সন্দেহ করলেও একটা সময় নিশ্চিত ভাবেই জেনে যায়।
গল্পের শেষে দেখা যায় দুই সতীন একে অপরকে না দেখলেও তারা নিজেরা সহীহ থেকে নিজেরাই কোন এক কারণে আদর্শ সতীন হিশেবে গণ্য হয়ে যান।

*থ্রি-জি হিট*
ব্যতিক্রমী বউয়ের অত্যাচারে স্বামী বিরক্ত হয়ে বন্ধু বান্ধবের পরামর্শ নিয়ে দ্বিতীয় বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয়।
এই খবর শুনে বউয়ের টনক নড়ে। সবার হাতে পায়ে ধরে বিয়ে বন্ধ করতে না পেরে বুদ্ধিমতী বউ এমন এক কাজ করে যা শুনলে কিছুক্ষণ হাসি কে সময় দিতে হবে।
পড়তে গেলে একই লাইন দুই-তিন বার পড়তে হবে।
আসলে কি পড়লাম আমি!!

*সোনালি প্রজাপতি*
এটি বর্তমান জমানার প্রেক্ষাপটে লিখা। আধুনিক জীবনে যা অহরহ ঘটছে।
বউয়ের বড় ভাইয়ের কাছ থেকে লেটেস্ট মডেলের এন্ড্রয়েড সেট পায় জামাইবাবাজী।
যিনি ইন্টারনেট সম্পর্কে এতদিন অবগত ছিলেন না।
যাক! নতুন সেট পেয়ে ফেইসবুক --টুইটার --ইনস্টাগ্রাম সম্পর্কে জেনে তিনি খানিকটা বিগড়ে যান।
বউ এটা বুঝতে পেরে ভাইয়ের সাথে যুক্তি করে জামাইবাবাজী কে ভালো ভাবে জব্দ করার খুব সুন্দর একটা প্ল্যান করে। যাতে সাপ ও মরে লাঠিও ভাঙ্গেনা।

*হুরবিবি*
বৃদ্ধা মা আব্দুল ওয়াহেদ বিন যায়েদ (রাহ.) এর কাছে যখন শুনলেন জান্নাতের হুরদের কথা, তখন তার মন আর সায় দিলো না যে, জান্নাতি হুর ছাড়া আর কেউ তার পুত্রবধূ হোক।
তখন তিনি আব্দুল ওয়াহেদ বিন যায়েদ (রাহ.) এর সাথে পরামর্শ করে ফেললেন কিভাবে তিনি সেই হুরদের পুত্রবধূ রূপে পাবেন। এক বৃদ্ধা মায়ের কুরবানী আমরা দেখতে পেলাম এই গল্পটিতে।
বৃদ্ধা মা তার ছেলে কে বর বেশে জিহাদের ময়দানের পাঠানোর ব্যবস্থা করে দিলেন।
তারপর প্রতীক্ষায় রইলেন ছেলে হুর পুত্রবধূ কে পেলো তো??

* I Love You*
ছোট খাটো একটা মানুষ, কিন্তু তেজ তার অমিত, ব্যক্তিত্বের লড়াইয়ে অনেক বড় বড় বাঘা পুরুষকে ও হার মানিয়েছেন।
তিনি হলেন হেফজ বিভাগের উস্তাদের অর্ধাঙ্গিনী। ছাত্রদের শ্রদ্ধার আম্মাজী।ছাত্ররা সবসময় খেয়াল করে বাহির থেকে আম্মাজীর প্রতি হুজুরের মহব্বত, আবার মাঝে মাঝে নিজেরা ও অসুস্থতার ভান করে আম্মাজীর একটু স্নেহ পেতে।
গল্পটিতে আছে প্রিয় শিক্ষকের তাঁর মাদরাসার প্রতি ভালোবাসার কথা।
তাঁর শিক্ষকদের প্রতি শ্রদ্ধার কথা।
আলেম হওয়া সত্ত্বেও কেন তিনি হেফজ বিভাগের দায়িত্ব নিয়ে আছেন? কারণ হিশেবে তার কিছু অমূল্য কথা।
এত বিশাল পরিবারের মেয়ে কিভাবে তাঁর ঘরে এলেন তা নিয়ে ও আছে অনেকটা কাহিনী। 
সব শেষে আছে প্রিয় অর্ধাঙ্গিনী তার রাগ চিঠি লিখে কিভাবে ভাঙ্গায়,আছে সেই পবিত্র ভালোবাসার কথা।

*স্ত্রীর বিকল্প *
দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা না দেয়া হলে পরবর্তীতে তা নিয়ে আফসোস করতে হবেই।
সেই সূত্র অনুযায়ী এক লোক তার স্ত্রীকে ততটা গুরুত্ব দিতোনা, নিজের ব্যবসা-বানিজ্য নিয়েই ব্যস্ত থাকতো শহর থেকে শহরে।
এক পর্যায়ে স্ত্রী অসুস্থ হয়ে স্বামীর অবহেলা, ডাক্তার-পথ্যের অভাবে ইহকাল ত্যাগ করে। 
এবার স্বামীর টনক নড়ায় ঘরে ফিরে। আর বাচ্চাদের জন্য একজন বয়স্ক অভিজ্ঞ সার্বক্ষণিক আয়ার জন্য বিজ্ঞপ্তি দেয়। বিজ্ঞপ্তির সাড়া পেয়ে যারা আসে, তাদের কাজের ফর্দ আর পারিশ্রমিক এর ফর্দ শুনে স্বামী বেচারা দাঁতের মর্ম(স্ত্রীর অভাব) খুব ভালো ভাবেই বুঝতে পারে।

*দ্বিতীয় বাসর*

সীমার বাহিরে কোন কিছুই ভালো না।
যতটুকু আমাদের জন্য নির্ধারণ করেছে ইসলাম, তাই মেনে নেই, দুইদিকেই আমরাই লাভবান হবো।
তা বুঝাতেই এই গল্প, 
সালেহ খুব সৎ এবং সহজ সরল লোক।আর খুব সহজ ভেবেই বউ খুব অবহেলা করে, রাগের মাথায় সালেহ ও কিছু বলে।
বউ বেচারীর ভালোই মূল্য দিতে হয় এই কথার, আর উপলদ্ধি ও হয় তার অপরাধের।

*তালাক*
প্রতিটি মানুষের ভালো খারাপ দুটি দিক আছে, এক দিক দেখে তাকে যাচাই করা উচিৎ নহে, শুধু খারাপ টা দেখে তাকে মন্দ বলার আগে তার ভালোটা ও দেখে নেয়া উচিৎ। যাতে মন্দ বলা থেকে বিরত থাকতে পারে।

তেমনি এক নারী তার স্বামীকে তালাক দিতে কোর্টের শরনাপন্ন হলেন, বিচারক স্বামীর দোষগুলো শুনে তার ভালোদিক গুলো ও জিজ্ঞেস করেন।
ফলশ্রুতিতে বউ ভালো দিক বের করতে করতে তার সিদ্ধান্ত ই বদলে ফেলে।
আমাদের জন্য খুব ভালো কিছু মেসেজ আছে গল্পটিতে।

*তামীমা*
এই গল্পটিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।
নবদম্পতী থেকে শুরু করে সকল দম্পতীদের জন্য রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ কিছু মেসেজ।
সংসারে কিভাবে স্ত্রীকে চলতে হবে কিভাবে স্বামীকে চলতে হবে তা নিয়ে বেশ ভালোভাবে ২০টি পয়েন্ট দিয়ে তুলে ধরা হয়েছে বনু তামীম গোত্রের এক মেয়ের মাধ্যমে।

বইটি মোট তেরোটি গল্প দিয়ে সাজানো হয়েছে।
আরো রয়েছে, যাহ, দুষ্টু! চড়ুইদম্পতি, ভালোবাসামাখা তরকারি, আ--শিরু বিল মারূফ ' এই নামে কিছু গল্প। 
খুব ছোট্ট ছোট্ট গল্পগুলো তে আমাদের জন্য রয়েছে খুব প্রয়োজনীয় কিছু বার্তা।

 

আপনি লগড ইন নাই, দয়া করে লগ ইন করুন

এই বিষয়ে অন্যান্য বই